মো.নূর আলম গোপালপুর প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের গোপালপুরে গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার সন্ধ্যা রাত আটটার দিকে গোপালপুর পৌর শহরের মেহেরুন্নেসা মহিলা কলেজের গেটে পর পর চারটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে। এতে শহরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ফলে গোপালপুর-মধুপুর সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এ ঘটনায় রাতেই অজ্ঞাতনামা ৭৫জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
গোপালপুর থানা  পুলিশ জানায়, আগামী ১০ অক্টোবর গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ঘোষিত হবে। এ মামলার অন্যতম প্রধান আসামী হলেন স্থানীয় সাবেক সাংসদ
এ ব্যাপারে উপজেলা বিএনপির সভাপতি অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর আলম রুবেল জানান, তার জানা মতে বিএনপি জামায়াত কর্মীদের কলেজের ভিতরে অবস্থান করার কোন কারণ নেই। কলেজের ভিতরে ছাত্রী হোস্টেল । সেখানে কেন দলীয় নেতাকর্মীরা অবস্থান নেবেন। তাছাড়া দলীয় কোন কর্মসূচিও আজ ছিলনা। ঘটনাটি তার কাছে ভৌতিক মনে  হচ্ছে বলে জানান তিনি।
এবং বিএনপির সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুস ছালাম পিন্টু ও তার কনিষ্ঠ ভ্রাতা মাওলানা তাজউদ্দীন আহমেদ। মামলার রায়কে কেন্দ্র করে সার্বিক পরিস্থিতিকে অস্থিতিশীল করার জন্য স্থানীয় বিএনপি ও জামায়াত কর্মীরা নাশকতা করার উদ্দেশ্যে মেহেরুনেচ্ছা মহিলা কলেজ মাঠে সন্ধ্যা থেকে অবস্থান করছিল। ওসি হাসান আল মামুনের নেতৃত্বে দ্রুত পুলিশ সেখানে হাজির হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে কলেজের ভেতর থেকে সন্ত্রাসীরা পর পর চারটি হাত বোমা ছুড়ে পালিয়ে যায় বলে জানান ওসি হাসান আল মামুন। পুলিশ অল্পের জন্য রক্ষা পায় বলে জানান তিনি। ভিতর থেকে গেট বন্ধ থাকায় এবং সন্ত্রাসীরা দেয়াল টপকে পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি বলে জানান তিনি। রাতেই পুলিশ অজ্ঞাতনামা ৭৫জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেন।
Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: