মির্জাপুর, উপজেলা প্রতিনিধি :  

৫ দিন মির্জাপুরে ডেঙ্গু পরীক্ষা বন্ধ


টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে গত শনিবার থেকে কুমুদিনী হাসপাতালসহ বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকে কিট সংকটে ডেঙ্গু পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। এছাড়া কিট বরাদ্দ না পাওয়ায় উপজেলার জামুর্কী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এখনও ডেঙ্গু পরীক্ষা শুরু হয়নি। এতে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সরকারিভাবে কিট না আসায় ডেঙ্গু পরীক্ষা শুরু করা যায়নি বলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শামীম আহমেদ জানিয়েছেন।

এদিকে গত শুক্রবার পর্যন্ত কুমুদিনী হাসপাতালে ৭১ জন রোগীর ডেঙ্গু পরীক্ষা করা হয়েছে। বুধবার সকাল পর্যন্ত কুমুদিনী হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রন্ত ৩ শিশুসহ ২৪ জন রোগী ভর্তি রয়েছে।

কুমুদিনী হাসপাতালের এজিএম অনিমেশ ভৌমিক জানান, কুমুদিনী হাসপাতালে নারী ও পুরুষ ডেঙ্গু রোগীদের জন্য আলাদা ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। নিচতলায় পুরুষ এবং দোতলায় মহিলা ডেঙ্গু রোগীদের জন্য পৃথক ওয়ার্ড রয়েছে। তবে কিট না থাকায় গত শনিবার থেকে ডেঙ্গু পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। কিট এলেই রোগীদের ডেঙ্গু পরীক্ষা শুরু করা হবে।

মির্জাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শামীম আহমেদ বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আগে কখনও ডেঙ্গু শনাক্তের কাজ করা হয়নি। এই রোগের প্রকোপ দেখা দেয়ায় আমরা চাহিদাপত্র পাঠিয়েছি। কেন্দ্রীয়ভাবে কিটের সংকট রয়েছে। কিট পেলেই ডেঙ্গু শনাক্তকরণ কাজ শুরু করা হবে।
স্পোর্টস ডেস্ক :

২০২২ বিশ্বকাপ খেলতেই ব্রাজিলে ফিরেছেন আলভেজ

অবশেষে তিনি ফিরলেন দেশে, ছেলেবেলার ক্লাব সাও পাওলোতে। অনেকেই মনে করছেন, দানি আলভেজের ক্যারিয়ার শেষের পথে। তাই নামী ক্লাব ছেড়ে এখন দেশে ফিরেছেন। তবে আলভেজ নিজে এমনটা মনে করেন না। রক্ষণের অভিজ্ঞ এই সেনানী জানালেন, ২০২২ সালে কাতার বিশ্বকাপে ব্রাজিলের হলুদ জার্সি পরে মাঠে নামার লক্ষ্য নিয়েই এগোচ্ছেন তিনি, যখন বয়সটা হবে ৩৯ বছর।

মঙ্গলবার রাতে আলভেজকে স্বাগত জানাতে সাও পাওলোর প্রায় ৪০ হাজার সমর্থক মাঠে এসেছিলেন। সাবেক বার্সেলোনা এবং জুভেন্টাসের ডিফেন্ডার সর্বশেষ খেলেছেন প্যারিস সেন্ট জার্মেইতে (পিএসজি)। জুলাইয়ে ক্লাবের সঙ্গে চুক্তি শেষ হবার পর ফ্রি টান্সফারে সাও পাওলোতে ফেরার সিদ্ধান্ত নেন আলভেজ।

খেলোয়াড়ি জীবনে এখন পর্যন্ত ৪০টি ট্রফি জেতা আলভেজ ক্যারিয়ার নিয়ে বড় স্বপ্ন দেখা ছাড়েননি এখনও। বললেন, ‘আগামী বিশ্বকাপে খেলার স্বপ্ন দেখি আমি। আমি একটি দল চাই, যে দল আমার উপর বিশ্বাস রাখবে, আমার ফুটবল ক্যারিয়ারের ইতিহাসের উপর বিশ্বাস রাখবে। তাই আমি সাও পাওলোতে এসেছি। আমি চাই না কেউ ভাবুক আমার ক্যারিয়ার শেষ। আমার এখনও অনেক লক্ষ্যপূরণ বাকি।’

গত বিশ্বকাপে হাঁটুর চোটের কারণে ব্রাজিলের হয়ে খেলতে পারেননি আলভেজ। তার আগে ২০১০ এবং ২০১৪ দুই বিশ্বকাপে দলের সঙ্গে ছিলেন। কিন্তু দুইবারই মাইকনের কারণে একাদশে জায়গা হয়নি।

ক্যারিয়ার বড় করতে এখন ডিফেন্ডার থেকে মিডফিল্ডার হওয়ার পথ ধরেছেন আলভেজ। ২০০৭ সালে ফিফার বর্ষসেরা খেলোয়াড় কাকা, যিনি কিনা সাও পাওলোর আরেকজন ঐতিহাসিক খেলোয়াড়, তার হাত থেকেই ১০ নাম্বার জার্সিটা গ্রহণ করেন আলভেজ। নিজের দেশের ক্লাবে এত সমর্থকের উষ্ণ অভ্যর্থনা পেয়ে আবেগ আর ধরে রাখতে পারেননি তিনি।

আবেগী কণ্ঠে আলভেজ বলেন, ‘আজ সাও পাওলো একজন খেলোয়াড়কে চুক্তিবদ্ধ করেনি, ক্লাবটি চুক্তিবদ্ধ করেছে আসলে আপনাদেরই মতো একজন সমর্থককে।’

নতুন ঠিকানায় আলভেজের যাত্রাকে স্বাগত জানিয়েছেন তার সাবেক বার্সা সতীর্থ লিওনেল মেসি আর লুইস সুয়ারেজ। মুরম্বি স্টেডিয়ামে জায়ান্ট স্ক্রিনে এই বর্ষীয়ান ব্রাজিল ডিফেন্ডারকে শুভকামনা জানান তারা।
ডেস্ক নিউজ :

প্রধানমন্ত্রী নেই, তাই আজ উড়বে না ‘গাঙচিল’


সম্প্রতি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হয়েছে বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত আরও একটি নতুন বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ ‘গাঙচিল’। বুধবার এটি উদ্বোধনের কথা ছিল প্রধানমন্ত্রীর। কিন্তু তিনি দেশে না থাকায় আজ ‘গাঙচিল’ উদ্বোধন হচ্ছে না।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পরিচালক পরিকল্পনা মহাবুব জাহান খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী দেশে না থাকায় উদ্বোধনের তারিখ পরিবর্তন করা হবে। তবে কবে উদ্বোধন করা হবে তা এই মুহূর্তে বলা সম্ভব নয়। প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার পর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

সম্প্রতি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, ৭ আগস্ট নতুন বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু তিনি চোখের চিকিৎসার জন্য লন্ডনে রয়েছেন। সেজন্য ড্রিমলাইনার নতুন এ উড়োজাহাজ উদ্বোধনের তারিখ পিছিয়ে দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’-এ ২৭১টি আসন রয়েছে, এর মধ্যে বিসনেস ক্লাস ২৪টি এবং ২৪৭টি ইকনোমিক ক্লাস। এ উড়োজাহাজটি যুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে বিমান বাংলাদেশের বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা হবে ১৫টি। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ২০০৮ সালে মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িংয়ের সঙ্গে ১০টি নতুন বিমান কেনার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। এর মধ্যে চারটি নতুন বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, দুটি নতুন বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এবং চারটি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার রয়েছে।
ডেস্ক নিউজ :

২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোরবানির বর্জ্য অপসারণের নির্দেশ

ঈদুল আজহায় পশু কোরবানির বর্জ্য ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন। বুধবার (৭ আগস্ট) দুপুরে ডিএসসিসির নগর ভবনে ‘কোরবানির বর্জ্য দ্রুত ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের সাথে দিক নির্দেশনামূলক সভায়’ উপস্থিত পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের তিনি এ নির্দেশ দেন।

সভায় ডিএসসিসির সব ওয়ার্ডের পরিচ্ছন্নতাকর্মী ও পরিবহন চালকরা উপস্থিত ছিলেন। তাদের উদ্দেশে মেয়র বলেন, ‘গত বছরের ঈদে আমরা ২৪ ঘণ্টায় কোরবানির বর্জ্য অপসারণে সফল হয়েছিলাম। এবার কি পারব? সবাই হাত তুলেন।’ এ সময় পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা হাত তুললে তিনি তাদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বর্জ্য অপসারণের নির্দেশ দেন।

পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের উদ্দেশে সাঈদ খোকন আরও বলেন, ঈদের দিন নামাজের পর সবচেয়ে বেশি পশু কোরবানি হয়। ঈদের পরদিন ও তৃতীয় দিন কিছু সংখ্যক পশু কোরবানি হয়। আপনাদের (পরিচ্ছন্নতাকর্মী) সম্মতি নিয়ে ও আল্লাহ ওপর ভরসা রেখে আমি নগরবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই, গত বছরের মতো এবারও ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আমরা কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করব।

নগরবাসীর উদ্দেশ্যে মেয়র বলেন, প্রতিটি ওয়ার্ডে কমপক্ষে ৫টি পশু কোরবানির নির্ধারিত স্থান রয়েছে। সেখানে প্যান্ডেল, পানি, ইমাম সাহেবসহ যাবতীয় ব্যবস্থা রাখা হবে। আপনারা অনুগ্রহ করে সেখানে পশু কোরবানি করবেন। যদি সেখানে কোনো কারণে পশু কোরবানি দেয়া সম্ভব না হয় তাহলে যেখানেই কোরবানি করবেন সেখানে পানি কিংবা রক্ত জমতে দেবেন না। পশুর রক্ত পানি দিয়ে ধুয়ে সেখানে ব্লিচিং পাউডার দিয়ে দিতে হবে। এছাড়াও সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে সবাইকে বড় ব্যাগ দেয়া হবে। সেই ব্যাগে বর্জ্য ঢুকিয়ে নির্ধারিত স্থানে রাখবেন। আমাদের পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা গিয়ে বর্জ্য সংগ্রহ করবেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে ডেঙ্গু পরিস্থিতি অত্যন্ত সংকটাপন্ন। যদি কোরবানির বর্জ্য, পানি, রক্ত ইত্যাদি অপসারণ না করা হয় তাহলে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে। কারও এলাকায় যদি বর্জ্য থেকে যায় তাহলে তিনি হটলাইনে (০৯৬১১০০০৯৯৯) ফোন দেবেন। হটলাইনে অপারেটররা আপনার বাসা-বাড়ি কিংবা এলাকায় পরিচ্ছন্নতাকর্মী পাঠিয়ে দেবেন। এছাড়া বর্জ্য অপসারণের সার্বিক কাজ ফেসবুকে তদারকি করা হবে।
টাঙ্গাইলদর্পণ.কম নিউজ ডেস্ক :

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) বেলা সোয়া ১১টায় গণভবনের লেকে মাছের  পোনা অবমুক্ত করে এ মৎস্য সপ্তাহ উদ্বোধন করেন তিনি। 

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী


এর আগে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৯ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী। অনুষ্ঠানের শুরুতেই মৎস্য চাষের ওপর একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রইসুল আলম মণ্ডল।

অনুষ্ঠানে মৎস্য চাষ, রেণু উৎপাদনসহ মৎস্য সংক্রান্ত বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার জন্য আট প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে স্বর্ণপদক এবং ৯টি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে রৌপ্য পদক প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশব্যাপী জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ শুরু হয়েছে গতকাল বুধবার (১৭ জুলাই)। ২৩ জুলাই পর্যন্ত চলবে এই সপ্তাহ। এ বছরের জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের স্লোগান 'মাছ চাষে গড়বো দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ'।