যুবলীগ নেতার স্বীকারোক্তিতে অস্ত্র-গুলি উদ্ধার - Tangail Darpan | Online Bangla Newspaper 24/7 | টাঙ্গাইল দর্পণ-অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল ২৪/৭ যুবলীগ নেতার স্বীকারোক্তিতে অস্ত্র-গুলি উদ্ধার - Tangail Darpan | Online Bangla Newspaper 24/7 | টাঙ্গাইল দর্পণ-অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল ২৪/৭
  • শিরোনাম

    মঙ্গলবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৫

    যুবলীগ নেতার স্বীকারোক্তিতে অস্ত্র-গুলি উদ্ধার

    জেলা নিউজ ডেক্স : সাতকানিয়া উপজেলার এওচিয়া ইউনিয়নের ছনখোলা এলাকায় রাতের আঁধারে মেয়ের শ্বশুরবাড়ীতে বেড়াতে এসে গুলিতে নিহত বৃদ্ধা আনোয়ারা বেগম হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

    এঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে স্থানীয় ইউনিয়ন যুবলীগের সহ সভাপতি ও ইউপি সদস্য মাহমুদুল হকসহ চারজনকে। দুই দফা রিমান্ড শেষে সোমবার রাতে মাহমুদুলের বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে তার বাড়ীর ডোবা থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করে সিআইডি।

    মঙ্গলবার সকাল ১১টায় সিআইডি চট্টগ্রাম কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরেন সিআইডির পরিদর্শক ওবায়দুল হক।

    ওবায়দুল হক জানান, চলতি বছর এওচিয়া ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ডে বৃদ্ধ হাফিজুর রহমানকে গুলি করে হত্যা করতে গিয়ে তার বাড়ীতে বেড়াতে আসা ছেলের শ্বাশুড়ি আনোয়ারা বেগম মিস টার্গেটে পড়ে গুলিতে নিহত হন। এঘটনায় হাফিজুর রহমানের সাথে জোট বেঁধে স্থানীয় ইউপি সদস্য মাহমুদুল হক প্রতিপক্ষ নজরুল ইসলাম মানিককে ফাঁসানোর চেষ্টা করেন। মামলাটি সাতাকানিয়া থানা পুলিশের কাছ থেকে সিআইডির কাছে আসার পর গত ৫ আগস্ট স্থানীয় ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগের সহ সভাপতি মাহমুদুল হকসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে সিআইডি। গ্রেপ্তার অন্যরা হলেন-নুরুল আলম (৩৪), আল আমিন (৩৬) ও আমিনুল হক(৩৭)।

    এরপর ৬ আগস্ট তাদের রিমান্ডে আনলে তারা প্রতিপক্ষ মানিককে ফাঁসাতে গিয়ে হাফিজুর রহমানকে হত্যা করতে গিয়ে মিস টার্গেটে তার ছেলের শ্বাশুড়িকে হত্যা করেন বলে স্বীকার করে নেন। এরপর দ্বিতীয়দফা ১৭ আগস্ট একদিনের রিমান্ডে আনা হলে মাহমুদুল স্বীকার করেন যে, তার বাড়ীতে অস্ত্রের মজুদ রয়েছে।

    তারই দেয়া স্বীকারোক্তিতে সিআইডির পরিদর্শক ওবায়দুল হকের নেতৃত্বে সোমবার রাতে অভিযান চালিয়ে মাহমুদুলের বাড়ীর পাশের ডোবা থেকে প্লাস্টিকে মোড়ানো অবস্থায় অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়। সেখান থেকে একটি টুটু রাইফেল, দুইটি টুটু একে ম্যাগজিন, ছয়টি টুটু বোরের গুলি, তিনটি এলজি, সাতটি বন্দুকের কার্তুজ। এঘটনায় অস্ত্র আইনে পৃথক আরেকটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

    সংবাদ সম্মেলনে নিজেকে এওচিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সহ সভাপতি দাবি করে মাহমুদুল হক মেম্বার জানান, তিনি সাতকানিয়া লোহাগাড়া আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি প্রফেসর ড. আবু রেজা নেজাম উদ্দিন নদভীর অনুসারি হিসেবে কাজ করেন।
    • Blogger Comments
    • Facebook Comments
    Item Reviewed: যুবলীগ নেতার স্বীকারোক্তিতে অস্ত্র-গুলি উদ্ধার Rating: 5 Reviewed By: Tangaildarpan News
    Scroll to Top