ভয়াবহ অগ্ন্যুৎপাত: ম্যানিলা বিমানবন্দর বন্ধ

আকাশে ১৫ কিলোমিটার অব্দি ছাই ছড়িয়ে পড়েছে ছাই। ছাইয়ের সঙ্গে সেখান থেকে বেরিয়ে আসছে আগুন আর ধোঁয়া

ফিলিপাইনের রাজধানী থেকে মাত্র ৪৫ মাইল দূরে অবস্থিত তাল আগ্নেয়গিরি থেকে হঠাৎ করেই ভয়াবহ অগ্ন্যুৎপাত শুরু হওয়ার পর ম্যানিলা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সব ধরনের ফ্লাইট উঠানামা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

এই আগ্নেয়গিরির লাভা উদগিরণ বা ‘বিপজ্জনক বিস্ফোরণ’ কবে নাগাদ থামবে সে ব্যাপারে নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছে না ফিলিপাইন কর্তৃপক্ষ। বরং এ থেকে ভূমিকম্প ও সুনামি হতে পারে বলে আশঙ্কা করছে দেশটির ভলকেনো এন্ড সিসমোলজি দপ্তর। স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে বিবিসি বলছে, এই বিপজ্জনক পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে কয়েক দিন লেগে যেতে পারে।

রোববার স্থানীয় সময় দুপুরে হঠাৎ করেই ফিলিপাইনের লুজন দ্বীপে অবস্থিত তাল আগ্নেয়গিরি থেকে প্রচণ্ড গতিতে লাভা উদগিরণ শুরু হয়। আকাশে ১৫ কিলোমিটার অব্দি ছড়িয়ে পড়েছে ছাই। ছাইয়ের সঙ্গে সঙ্গে সেখান থেকে বেরিয়ে আসছে আগুন আর ধোঁয়া। প্রবল বেগে অগ্ন্যুৎপাতের ফলে মাটি কেঁপে উঠছে এবং বিভিন্ন স্থনে ফাটল ধরেছে। 

এ অবস্থায় আশপাশের তিন শহরের লোকজনকে দ্রুত সরিয়ে আনার নির্দেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। শুরু হয় উদ্ধার তৎপরতা। 

এ সম্পর্কে ফিলিপাইনের জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ সাংবাদিকদের জানায়, আগ্নেয়গিরির আশপাশের এলাকাগুলো থেকে রোববার সন্ধ্যার মধ্যে ৮ হাজার মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরে যাওযার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে প্রায় ৬ হাজার জনকে ওইসব এলাকা থেকে সরিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে উদ্ধারকারীরা।

এই অগ্ন্যুপাতের ফলে আকাশের অনেকখানি এলাকা জুড়ে ছাই ও ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়ার কারণে ম্যানিলা বিমানবন্দরের সকল কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ম্যানিলা স্টক এক্সচেঞ্জের কার্যক্রমও।

তাল ফিলিপাইনের দ্বিতীয় জীবন্ত আগ্নেয়গিরি। এটা বিশ্বের ক্ষুদ্রতম আগ্নেয়গিরিগুলোর একটি। গত সাড়ে ৪শ বছরে এখান থেকে কমপক্ষে ৩৪ বার অগ্ন্যুপাত হয়েছে। 

এমএ/ 

© Bangladesh Journal


from BD-JOURNAL https://www.bd-journal.com/international/103179/ভয়াবহ-অগ্ন্যুৎপাত-ম্যানিলা-বিমানবন্দর-বন্ধ
Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: