টাঙ্গাইলদর্পন নিউজ ডেস্ক :

সুবর্ণচরে গণধর্ষণ: ৯নং আসামি সালাউদ্দিনও গ্রেফতার
নোয়াখালীর সুবর্ণচরে গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনায় সালাউদ্দিন (৩৫) নামে আরও এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ নিয়ে এ ঘটনায় আটজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

শনিবার রাত ৩টার দিকে ফেনী সদর উপজেলার সুলতানপুর গ্রামের এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতের নাম সালাউদ্দিন (৩৫) সুবর্ণচরের চরজুবলী ইউনিয়নের মধ্যম বাগ্গা গ্রামের টোকাইয়ের ছেলে। তিনি মামলার ৯নং আসামি।

চরজব্বর থানার ওসি নিজাম উদ্দিন বলেন, এ মামলায় রাতে ফেনী সদর উপজেলার সুলতানপুর গ্রামের এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে সালাউদ্দিনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের থানায় রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন তদন্ত কর্মকর্তা এসআই ইব্রাহীম। অন্য আসামিদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান ওসি।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ ডিসেম্বর ভোটের দিনগত রাতে ওই গৃহবধূর বাড়িতে গিয়ে রুহুল আমিনের নেতৃত্বে এক গৃহবধূ ধর্ষণ করা হয়। এর পর ঘটনাটি কাউকে না বলতে এবং মামলা না করতে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে তারা পালিয়ে যায়।

পরে ভুক্তভোগী নারীর স্বামী ৯ জনকে আসামি করে মামলা করেন। এ মামলায় মোট সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বুধবার অভিযান চালিয়ে ঘটনার মূলহোতা রুহুল আমিনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ভুক্তভোগীর স্বামী জানান, ধানের শীষে ভোট দেয়া কেন্দ্র করে তার স্ত্রী গণধর্ষণের শিকার হন।

ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর নিন্দার ঝড় ওঠে।

ধর্ষকরা হল- একই গ্রামের মো. তোফায়েলের ছেলে আওয়ামী লীগকর্মী ও সন্ত্রাসী মোশাররফ হোসেন, ইসমাইলের ছেলে সোহেল, আবুল কাশেমের ছেলে বেছু, আবুল কালামের ছেলে সোহেল, আবদুল মন্নানের ছেলে স্বপন, ইউসুফের ছেলে আনোয়ার, নুরুল হকের ছেলে আমীর হোসেন, বাগন আলী ওরফে ইসমাইলের ছেলে মো. হানিফ, টোকাইর ছেলে সালাউদ্দিন, খোরশেদের ছেলে ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য রুহুল আমিন, আহমদ উল্লাহর ছেলে বাদশা।
Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: