জুয়েল রানা, সখীপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের সখীপুরে ভুল চিকিৎসায় ইসরাত জাহান হ্যাপী নামের এক কলেজছাত্রীর মৃত্যুর অভিযোগ ওঠেছে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে। সোমবার ভোর রাতে ওই ছাত্রী মারা যায়। মারা যাওয়া রোগী ইসরাত জাহান হ্যাপী সখীপুর আবাসিক মহিলা কলেজের অনার্সের ছাত্রী ও পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মুদি দোকানদার আব্দুল হান্নানের মেয়ে। ভুল চিকিৎসায় মারা যাওয়ার ঘটনায় চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।

সখীপুর-মহানন্দপুর সড়কের সখীপুর আবাসিক মহিলা অনার্স কলেজ ক্যাম্পাসের সামনে তারা এ মানববন্ধন পালন করেন। মানববন্ধন কর্মসূচিতে হ্যাপীর সহপাঠীসহ ও ওই কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শতশত শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকরা অংশ নেয়। কর্মসূচিতে হ্যাপীর স্বজনরাও উপস্থিত ছিলেন। এ সময় মেধাবী শিক্ষার্থী হ্যাপী ভুল চিকিৎসায় মারা যাওয়ায় অভিযুক্ত ডাক্তার আবদুস সাত্তারের বিচার দাবি করা হয়। এ সময় কলেজের অধ্যক্ষ রেনুবর রহমান, ছাত্রীসংসদের ভিপি স্বপ্না আক্তার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

হ্যাপীর স্বজনরা জানান, গত ৫ মার্চ পেটের ব্যথা নিয়ে সখীপুর পৌরশহরের লাইফ কেয়ার ক্লিনিক এন্ড নার্সিং হোমে তারা হ্যাপীকে ভর্তি করান। সে সময় ওই ক্লিনিকের একটি অংশের মালিক ও ডাক্তার আবদুস সাত্তার রোগীর অ্যাপিন্ডিসাইট হয়েছে জানিয়ে ৬ মার্চ অস্ত্রোপচার করেন। পরবর্তী সময়ে রোগীর অবস্থার অবনতিতে তাকে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে রেফার্ড করেন। সেখানেও রোগীর অবস্থার উন্নীত না হওয়ায় গত ১৬ মার্চ  ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সোমবার ভোররাতে হ্যাপী মারা যান। এদিকে, অভিযুক্ত চিকিৎসক আবদুস সাত্তারের বক্তব্য জানতে মুঠোফোনে বারবার ফোন দিলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।

সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাজমুল হক ভুঁইয়া বলেন, এ বিষয়ে এখনও কোন অভিযোগ পাইনি। পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: