আন্তর্জাতিক ডেস্ক :  ভারতের প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে চেন্নাইয়ের কে পৃথিকা যশিনিকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তিনি দক্ষিণাঞ্চলীয় তামিলনাড়ু প্রদেশে পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর পদে আবেদন করেছিলেন। খবর বিবিসির।

পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর পদে যোগ দেয়া পৃথিকা পুরুষ হিসেবে জন্মালেও অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে লিঙ্গ পরিবর্তন করেন। পরে তামিলনাড়ুতে পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর পদে আবেদন করলে প্রদেশের ইউনিফর্মড সার্ভিস রিক্রুটমেন্ট বোর্ড (টিএনইউএসআরবি) তাকে তৃতীয় লিঙ্গ হিসেবে চাকরি দিতে অস্বীকৃতি জানায়। পৃথিকা এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ে নামেন। চেন্নাইয়ের উচ্চ আদালত তার পক্ষে রায় দেয়।

রায়ে আদালত জানায়, সাব ইন্সপেক্টর পদে যোগ দেওয়ার জন্য যেসব যোগ্যতা প্রয়োজন তার সবই যশিনির রয়েছে। সুতরাং তাকে অনতিবিলম্বে যেন চাকরিতে নিয়োগ দেয়া হয়।

আদালতের রায়ে আরো বলা হয়েছে, এখন থেকে চাকরিতে নিয়োগের সময় রূপান্তরকামীদের জন্য থার্ড ক্যাটাগরি উল্লেখ করতে হবে।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বরেই আদালতের নির্দেশে মৌখিক পরীক্ষা দেওয়ার অনুমতি পান যশিনি। সে সময় তাকে পুরুষ হিসেবে উল্লেখ করা হলেও তিনি এখন নারী। উচ্চ আদালত জানিয়েছে, সংবিধান অনুযায়ীই একই ধরনের সুবিধা পাওয়ার অধিকার যশিনির মতো সকল তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের রয়েছে।

আদালতের রায়ের পর যশিনি এনডিটিভিকে বলেন, আমি খুবই শিহরিত। তৃতীয় লিঙ্গের সম্প্রদায়ের জন্য এটি একটি নতুন সূচনা। ভারতে প্রায় ২০ লাখ তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ রয়েছেন।
Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: