উইন্ডিজের চার রানের আক্ষেপ

ক্রীড়া ডেস্ক

গ্রানাডায় রান উৎসবের ম্যাচে চার রানের আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়লো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ক্যারিবিয়ানদের মাঠে টি-টোয়েন্টিতে প্রথমবারের মতো দুইশ ছাড়ানো স্কোর পায় আয়ারল্যান্ড। সে রান তাড়ায় কক্ষপথেই ছিল স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে শেষ দুই ওভারে তালগোল পাকিয়ে চার রানের হার দেখে দলটি।

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ৪ রানে জিতে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে গেছে আয়ারল্যান্ড। সফরকারিদের দেয়া ২০৯ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ৭ উইকেটে ২০৪ রানে থামে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইনিংস। এ ম্যাচ দিয়ে সাড়ে তিন বছর পর আবার টি-টোয়েন্টি দলে ফিরলো ডোয়াইন ব্রাভো। বল হাতে দলের সেরা বোলার ব্যাট হাতে নায়ক হওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। কিন্তু ব্যর্থ হয়েছেন ৩৬ বছরের এ অল রাউন্ডার।

গ্রানাডার সেন্ট জর্জেস’র ন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বুধবার টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় আয়ারল্যান্ড। দুই ওপেনারের ১৫৪ রানের জুটিতে দুরন্ত সূচনা পায় সফরকারিরা। এটি টি-টোয়েন্টিতে আয়ারল্যান্ডের যে কোনো উইকেটে রেকর্ড গড়া জুটি। উদ্বোধনী জুটিতে এই সংস্করণে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে যে কোনো দেশের সেরা।

১২.৩ ওভারের এ জুটিতে বেশি আগ্রাসি ছিলেন পল স্টার্লিং। ৪৭ বলে ৬ চার ও ৮ ছয়ে করেন ৯৫ রান। চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে দুইবার নব্বইয়ের ঘরে আউট হলেন স্টার্লিং। আরেক ওপেনার কেভিন ও’ব্রায়েন ৩২ বলে ৪ চার ও ২ ছয়ে করেন ৪৮ রান।

পাঁচ বলের ব্যবধানে দুই ওপেনার ফিরে গেলে কোনো রকমে দুইশ ছাড়ায় আয়ারল্যান্ড ইনিংস। শেষ দিকে গ্যারেথ ডিলেনি ১২ বলে ১৯ ও গ্যারি উইলসন করেন ১৭ রান। প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের ওপেনিং জুটি ভাঙেন ব্রাভো। ম্যাচে নেন ২৮ রানে ২ উইকেট। আর ২৫ রানে এক উইকেট শিকার হেইডেন ওয়ালশের।

রান তাড়ায় আগ্রাসি খেলতে থাকেন ক্যারিবিয়ান দুই ওপেনার। ৩ ওভারে তোলেন ৩৭ রান। তবে ১৪ বলে ২২ রানে ফেরেন বিপিএল থেকে দলে যোগ দেয়া লেন্ডল সিমন্স। তবে আরেক প্রান্তে ঝড় তোলেন এভিন লুইস। ২৯ বলে ৬ চার ও ৩ ছক্কায় খেলেন ৫৩ রানের বিস্ফোরক ইনিংস।

মিডল অর্ডারে প্রায় সব ব্যাটসম্যান রান পেলেও বড় ইনিংস খেলতে পারেননি কেউ। তিন ছক্কায় ১৮ বলে ২৮ রাস আসে শিমরন হেটমায়ারের ব্যাট থেকে। অধিনায়ক কাইরন পোলার্ড খেলেন ৩ ছয় ও এক চারে ৩১ রানের ইনিংস।

শেষ দুই ওভারে স্বাগতিকদের ৬ উইকেট হাতে নিয়ে প্রয়োজন ছিল ১৬ রান। তবে ১৯ তম ওভারে মাত্র ৩ রান দিয়ে ২৬ রান করা নিকোলাস পুরানকে ফিরিয়ে কাজ কঠিন করে তোলেন ক্রেইগ ইয়ং। শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল ১৩ রান। প্রথম বলে ফেরেন ২৬ রান করা শেরফান রাদারফোর্ড।

পরের দুই বলে আট রান করেন ব্রাভো। কিন্তু চতুর্থ বল মিস করে পঞ্চম বলে ফেরেন ব্রাভো। শেষ বলও ডট দেন হেইডেন ওয়ালশ। আয়ারল্যান্ড জেতে চার রানে। ২৯ রানে ৩ উইকেট নেন লিটল। ইয়ং ২ উইকেট ৩১ রানে। ৫ রানের জন্য সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপ নিয়ে ফেরা স্টার্লিং জেতেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার।

আগামী শনিবার হবে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আয়ারল্যান্ড: ২০ ওভারে ২০৮/৭ (স্টার্লিং ৯৫, ও’ব্রায়েন ৪৮; ব্রাভো ২/২৮, ওয়ালশ ১/২৫)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ২০ ওভারে ২০৪/৭ (লুইস ৫৩, পোলার্ড ৩১; লিটল ৩/২৯, ইয়ং ২/৩১)


ঢাকা/কামরুল



from Risingbd Bangla News https://ift.tt/3aaStrn
Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: