জুয়েল রানা, সখীপুর প্রতিনিধি :টাঙ্গাইলের সখীপুরে ফিলিং স্টেশনে দস্যুতার ঘটনা ঘটেছে। রবিবার  ভোর রাতের দিকে সখীপুর-ঢাকা সড়কের বোয়ালী এলাকায় স্থাপিত মেসার্স সখীপুর ফিলিং স্টেশনে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় চারজনের একটি ডাকাত দল দেশীয় অস্ত্রের মুখে ফিলিং স্টেশনের তিনজনকে মারধর করে ক্যাশ বাক্সের তালা ভেঙে চার লাখ ৩২ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। আহত ওই তিনজন রোববার ভোর পাঁচটায় সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। এ ব্যাপারে ওই ফিলিং স্টেশনের মালিক সালাউদ্দিন রাজু বাদী হয়ে রোববার দুপুরে সখীপুর থানায় চারজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা করেছেন।
থানা-পুলিশ সূত্র ও  ফিলিং স্টেশনের ক্যাশিয়ার লোকমান হোসেন জানান, রবিবার ভোর রাতে  দিকে ফিলিং স্টেশনের নৈশ প্রহরি ওয়াজেদ আলীকে বেধে স্টেশনের পেছন দিক থেকে ডাকাত দল ভেতরে ঢুকে আমাকে ও অপারেটর জিয়াউলকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে বেধে ফেলে। পরে ক্যাশ বাক্সের তালা ভেঙে ৪ লাখ ৩২ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। পরে ডাকাডাকি করলে আশপাশের লোকজন স্টেশনে এসে আমাদের বাধন খুলে দেয়। পরে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়।
সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসা কর্মকর্তা হারুনুর রশীদ বলেন, রোববার ভোর পাঁচটার দিকে ওই ফিলিং স্টেশনের ক্যাশিয়ার লোকমান হোসেন, অপারেটর জিয়াউল হক ও নৈশ প্রহরী ওয়াজেদ আলীকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। তাঁদের শরীরের বেশ কয়েকটি স্থানে সামান্য আঘাতের চিহ্ন ছিল।
সখীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ওবায়দুল্লাহ বলেন, চারজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে দস্যুতার মামলা হয়েছে। আসামিদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
মামলার বাদী সখীপুর ফিলিং স্টেশনের মালিক সালাউদ্দিন রাজু থানায় ডাকাতি মামলা করেছেন দাবি করলেও সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন বলেন, চারজনে মিলে ডাকাতি হয় না। এটা দস্যুতা।
Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: