জুয়েল রানা, সখীপুর প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলা মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির (জমিয়াতুল মোদার্রেসিন) নির্বাচন দাবিতে সমিতির কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে আন্দোলনকারী শিক্ষকরা। গতকাল সোমবার বিকেল পৌঁনে ছয়টায় উপজেলা পরিষদের জমিতে স্থাপিত ওই কার্যালয়ের মূল দরজার ওপরে ও মাঝখানে দুটি তালা মেরে ওই কার্যালয়ের আশপাশে অবস্থান নেয়। এর আগে বেলা পাঁচটায় ওই সমিতির সভাপতি দাবিদার সাইফুল ইসলাম কার্যালয়ের দরজার মাঝখানে একটি তালা দিয়ে কার্যালয় ত্যাগ করেন। গতকাল সন্ধ্যা সোয়া ছয়টায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় মাদ্রাসা সমিতির দুই পক্ষ আলাদা আলাদা অবস্থান নিয়েছে বলে জানা গেছে।
জানা যায়, ১৯৮৩ সালে সখীপুরে ২৭টি মাদ্রাসার শিক্ষকদের সমন্বয়ে জমিয়াতুল মুদার্রেসিন নামে একটি সংগঠনের যাত্রা শুরু হয়। ২০০৯ সালে ওই সংগঠনের পাঁচ বছর মেয়াদে একটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে প্রতিমা বংকী আলীম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ সভাপতি ও হতেয়া ডিএস দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাহবুবুর রহমান সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ওই সময় নির্বাচিতদের বিএনপি-জামায়াত অনুসারী অপবাদ দিয়ে ওই কমিটি বাতিল করে সরকার দলের অনুসারী নলুয়া সিনিয়র মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আবুল কাশেমকে সভাপতি ও থানা সদর দাখিল মাদ্রাসার সুপার সাইফুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়। ২০১৪ সালে কমিটির মেয়াদ শেষে কোনো নির্বাচন না করে নামদারপুর ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ রুহুল আমিন সভাপতি ও থানা সদর দাখিল মাদ্রাসার সুপার সাইফুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করে নতুন কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটির মেয়াদ গত ১৩ মে শেষ হলে ওইদিন কাউকে না জানিয়ে থানা সদর দাখিল মাদ্রাসার সুপার সাইফুল ইসলামকে সভাপতি ও কাহারতা মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক মোশাররফ হোসেনকে সাধারণ সম্পাদক করে একটি কমিটি ঘোষণা করা হয় বলে সাধারণ শিক্ষকরা অভিযোগ করেন। নির্বাচন ছাড়াই এ নতুন কমিটি ঘোষণা হওয়ায় মাদ্রাসার সাধারণ শিক্ষকরা নির্বাচনের দাবিতে গত ১৭ মে স্থানীয় সাংসদ জোয়াহেরুল ইসলামের কাছে একটি আবেদন করেন। গত দুই মাসে কোনো সুরাহা না হওয়ায় গতকাল সোমবার আন্দোলনকারীরা সমিতির কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেয়।


নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলন-সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক কালিয়ান দাখিল মাদ্রাসার সুপার আবদুর রহমান ও যুগ্ম আহ্বায়ক প্রতিমাবংকী ফাজিল মাদ্রাসার প্রভাষক আবদুস সালাম বলেন, আমাদের আর কোন দাবি নেই, আমাদের দাবি একটাই সেটা হচ্ছে সমিতির নির্বাচন দিতে হবে। দুইমাস আগে স্থানীয় সাংসদকে স্মারকলিপি দিয়ে আন্দোলন শুরু করেছিলাম। তালা মেরেছি। কাল থেকে মিছিল হবে। আমাদের দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবেই।
 সদ্য ঘোষিত কমিটির সভাপতি থানা সদর দাখিল মাদ্রাসার সুপার সাইফুল ইসলাম বলেন, সংগঠনের গঠনতন্ত্রে ইলেকশন ও সিলেকশন উভয়ই রয়েছে। সাধারণ সভায় আমাকে সর্বসম্মতভাবে সভাপতি করা হয়েছে। নির্বাচন যদি হতেই হয় তবে তা পাঁচ বছর পর হবে। আন্দোলনকারীদের তালা ঝুলানো প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তাঁরা গুটিকয়েকজন শিক্ষক আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। প্রয়োজনে আইনের আশ্রয় নিয়ে তালা খোলা হবে।

সখীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এ এইচ এম লুৎফুল কবির বলেন, কার্যালয়ে তালা মারা প্রসঙ্গে আমাকে কোনো পক্ষই অবগত করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: