নিজস্ব সংবাদদাতা : ১৫ এপ্রিল ২০১৮ বেলা ১১.৩০ মিনিটে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ঘারিন্দা হাইওয়ে নিকট এক বাড়ীতে ছিন্নমূল ৩জন শিশু চুরির উদ্দেশ্যে বাথরুমের ভেন্টিলেটর দিয়ে প্রবেশের সময় লেজার লাইট ও ছোট টর্চ লাইটসহ হাতে-নাতে ধরা পরে সাকিব (১২), রাকিব (৯), রাকিব (৭) নামের তিনটি শিশু। সাকিব (১২) ও রাকিব (৭) সহোদর দুই ভাই ঘাটাইল উপজেলার সাগরদিঘীর আবেদ আলী গ্রামের বাসিন্দা এবং রাকিব (৯) মির্জাপুর উপজেলার গোড়াইল গ্রামের বাসিন্দা। সাকিব (১২), রাকিব বড় (৯) ও রাকিব (৭) এক পর্যায়ে এই তিনটি শিশুর স্বীকাররোক্তি অনুযায়ী জানা যায় ভিক্ষুকের ছদ্মবেশে বিভিন্ন বাড়ীতে পূর্বে খোজ-খবর নিয়ে তাদেরকে চুরির কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। ব্যবহারকারী ছিন্নমূল শিশুদের চুরি/ছিনতাই ও নানবিধ অপরাধমূলক কাজে ব্যবহার করার সঙ্গবদ্ধ চক্রের মূল হোতা শাহ আলমসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৩জন টাঙ্গাইল শহর ও শহরতলীসহ গ্রামের বিভিন্ন বাড়ীতে চুরির কাজে দির্ঘদিন যাবত এদের ব্যবহার করে আসছে। ঐ তিন শিশুর তথ্যানুযায়ী আরো জানা যায় যে, এই চক্র সাইকেল, মোটর সাইকেলসহ অন্যান্য বড় ধরণের চুরি নিজেরাই করে থাকে। এরা টাঙ্গাইল নতুন বাসটার্মিনাল ও বৈল্লা এলাকায় পড়ে থাকা বিভিন্ন পুরাতন বাস বা ঐ জাতীয় গাড়ীরতে রাত্রি যাপন করে। এসব ছিন্নমূল শিশুদের শুধু খাবার লোভ দেখিয়ে সঙ্গবদ্ধ চক্রটি এসব অপরাধমূলক কাজ করাচ্ছে বলে তারা স্বীকার করেছে। শুধু চুরিই নয়, এরা এখনই মাদকাশক্ত হয়ে পড়ছে বলে জানা যায়। মানবিক কারণে গৃহকর্তা পরে এই তিন শিশুকে সাধারণ ক্ষমা করে তাদের সংশোধন হওয়ার কথা বলে ভবিষ্যতে এসব খারাপ কাজে লিপ্ত না হওয়ার জন্য এবং এ ধরণের অপরাধের শাস্তির কথা বুঝিয়ে তাদেরকে ছেড়ে দেয়।


Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: