স্টাফ রিপোর্টার :

নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসের প্রতি ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশের জাতীয় উন্নয়ন নয়, শুধু এক ব্যক্তির স্বার্থে আঘাত লাগায় পদ্মা সেতু প্রকল্প থেকে সরে গিয়েছিল বিশ্বব্যাংক। তা না হলে দেশ আরও এগিয়ে যেত। আরও উন্নয়ন হতো, বৃদ্ধি পেত জিডিপি।

মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) নিয়মিত বৈঠকের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতি অভিযোগ কানাডার আদালতে মিথ্যা প্রমাণিত হওয়া প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একজন ব্যক্তির স্বার্থে আঘাত লাগল বলে সেই ব্যক্তিটি দেশের এত বড় মূল্যবান প্রজেক্ট, যার ফলে আমার দক্ষিণাঞ্চলে সার্বিক মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়ন হতে পারত, আমাদের জিডিপিতে আরও এক ভাগ সংযুক্ত হতে পারত। আমরা আট ভাগে চলে যেতে পারতাম। সেই সম্ভাবনাকে ব্যাহত করে দিয়েছে।’

পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রে তৎকালীন যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের এক সচিবকে জেল খাটতে হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ওয়ার্ল্ড ব্যাংক আমাদের ওপর যে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছিল, তাদের ওই মিথ্যা অভিযোগে আমাদের একজন সচিবকে অযথা একটা বছর জেল খাটতে হয়। দেশ তার কাছে যে সেবাটা পেত, সেখান থেকে দেশকেও বঞ্চিত করলো মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে। কাজেই এ ধরনের ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে আর না ঘটে, সে ব্যাপারে খেয়াল রাখতে হবে।’

উল্লেখ্য, পদ্মা সেতু প্রকল্পে বিশ্বব্যাংক দুর্নীতির অভিযোগ তুললে ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে তখনকার যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন পদত্যাগ করেন। তবে সম্প্রতি পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছেন কানাডার আদালত। বর্তমানে নিজস্ব অর্থায়নে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে বাংলাদেশ।
Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: