বেড়েই চলেছে পেঁয়াজ-রসুনের দাম - Tangail Darpan | Online Bangla Newspaper 24/7 | টাঙ্গাইল দর্পণ-অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল ২৪/৭ বেড়েই চলেছে পেঁয়াজ-রসুনের দাম - Tangail Darpan | Online Bangla Newspaper 24/7 | টাঙ্গাইল দর্পণ-অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল ২৪/৭
শুক্রবার, ৪ মার্চ, ২০১৬

বেড়েই চলেছে পেঁয়াজ-রসুনের দাম

অর্থনীতি ডেক্স : দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে পেঁয়াজ আর রসুনের দাম। তবে কেন নিয়ন্ত্রনহীন গতিতে এ দুই পণ্যের দাম বাড়ছে তার সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ জানাতে পারছে না পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতারা।

জানা গেছে, তিন মাস যাবত প্রতি সপ্তাহে ১০ টাকা হারে রসুনের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। গত মাসে নতুন দেশি রসুন বাজারে আসায় এক সপ্তাহ স্থির থাকে রসুনের দাম। তবে বাজারে দেশি রসুনের চাহিদা কম থাকায় প্রতি সপ্তাহে ১০ টাকা কিংবা তার অধিক হারে দাম বাড়িয়ে যাচ্ছে বিক্রেতারা।

এদিকে রসুনের দাম বৃদ্ধির কারণ জানতে চাইলে পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতারা একই কথা জানান।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আমদানি রসুনের দাম বেশি হওয়ায় কিছুটা চাহিদা বেড়েছে দেশি রসুনের। যে কারণে এ সপ্তাহে ১০ টাকা বেশি দামে প্রতি কেজি ১৪০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে রসুন। আর আমদানি রসুন প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে বাজার ভেদে ২৫০ থেকে ২৬০ টাকা।

এদিকে নতুন দেশি পেঁয়াজ বাজারে আসার পরেও বেশি দামে কিনতে হচ্ছে ক্রেতাদের। তবে অন্য সকল পণ্যের দাম গত সপ্তাহের বাড়তি দামে, এ সপ্তাহে স্থির রয়েছে।

মালিবাগের শান্তিনগর বাজার পেঁয়াজ ও রসুন কিনতে আসা ব্যবসায়ী মজিদ তফাদার ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের বেতন বাড়ানোর পর থেকে বাজারের নিয়ন্ত্রণ নেই। সরকারের সামান্য কর বৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে অসাধু ব্যাবসায়ীরা যেন মূল্য বৃদ্ধির উৎসবে মেতেছে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, গত সপ্তাহ থেকে ৫ টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। বাজারভেদে দেশি পেঁয়াজ ৩৫ থেকে ৪০ টাকা প্রতি কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। আর আমদানি পেঁয়াজ ২৫ থেকে ৩০ টাকায়। 

এদিকে অপরিবর্তিত দামেই বিক্রি হচ্ছে আলু। প্রতি কেজি আলু এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ১৫ টাকা।

গত সপ্তাহের বাড়তি দামেই এ সপ্তাহেও বিক্রি হচ্ছে ফার্মের মুরগি (ব্রয়লার)। ফার্মের মুরগি প্রতি কেজি ১৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অপরিবর্তিত দামে প্রতি কেজি লেয়ার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকায়।

গত সপ্তাহের অতিরিক্ত ১০ থেকে ২০ টাকা বেশি দামে এ সপ্তাহেও বিক্রি হচ্ছে দেশি মুরগি। ছোট-বড় আকার ভেদে দেশি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৬০ থেকে ২৮০ টাকা। পাকিস্তানি মুরগি (পিস) ২০০ টাকা এবং কেজি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৫০ টাকা দরে।

গরু ও খাঁসির মাংস আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজি গরুর মাংস ৩৮০ টাকা এবং খাসির মাংস ৫৬০ থেকে ৫৮০ টাকা।
বাজার ও ডিমের আকার ভেদে রাজধানীর বাজারে অপরিবর্তিত দামে ফার্মের মুরগির ডিম বিক্রি হচ্ছে প্রতি হালি ৩৪ থেকে ৩৬ টাকায়, ডজন ১০০ টাকা। দেশি মুরগির ডিম হালি ৪৫ টাকা, ডজন ১৩৫ টাকা। হাঁসের ডিমের হালি ৪৬ টাকা, ডজন ১৩৫ টাকা।

টানা দুই সপ্তাহ ধরে ডিমের দাম কিছুটা স্থির রয়েছে। তবে আগামী সপ্তাহ থেকে দাম বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে বিক্রেতারা জানিয়েছেন।

আর অপরিবর্তিত দামে বিক্রি হচ্ছে সবজি। ফুলকপি, বাঁধাকপি প্রতি পিস ২০ থেকে ২৫ টাকা। টমেটো বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা কেজিতে।

কাঁচামরিচ কেজি প্রতি ৪০ টাকা, ধনেপাতা ৪০ টাকা কেজি, শালগম ২০ টাকা, বেগুন জাতভেদে ৪০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। শিম প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়।
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments
Item Reviewed: বেড়েই চলেছে পেঁয়াজ-রসুনের দামRating: 5Reviewed By: Tangail Darpan
Scroll to Top