বিশেষ প্রতিবেদক :  এসিডে ঝলসানো স্ত্রী নিয়ে অশ্র“সিক্ত নয়নে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দাঁড়িয়েছে ওরা চারজন। বলছে ওহে পথিক একটুখানি দাঁড়াও, শোন পথহারা, গৃহহারা আশ্রয়হীন ক্ষমতার অপব্যবহারকারীদের নির্যাতনের শিকার অত্যাচারের নির্মম সত্য ঘটনাবলী। আমাদের জান, মাল, স্ত্রীর ইজ্জত রক্ষা, সৎ পথে কর্ম করে বাঁচার অধিকার কি এই দেশে, এই সমাজে আমাদের নাই। বাঁচার জন্য আত্মচিৎকার করে ওরা বলতে থাকে আমরা কোন দেশের নাগরিক।

সরকার প্রশাসন থাকতেও সারকার প্রধানের চেয়েও ক্ষমতাবান হিটলারের মত নৃশংস চাঁদপুর জেলার কচুয়া থানার ৫নং পশ্চিম ছয়দেবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সামছুদ্দিন ম্ন্সুীর অত্যাচারের অতিষ্ট করুন কাহিনী। এই চেয়ারম্যান নিজের লোভ-লালসা, অবৈধ আয়-রোজগারের জন্য গড়ে তোলেছেন এক বিশাল মাদক ব্যবসায়ীক রাজ্য আর নারীদের সম্ভ্রম লুন্ঠনের রাজত্ব।

গতকাল ৫ অক্টোবর বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দাঁড়িয়ে এ কথাগুলো বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক নির্যাতিত ইউপি মহিলা মেম্বার শেফালী বেগম, এসিড ঝলসানো গৃহবধু নাজমা বেগম, মুদি দোকান হারানো ইসমাইল হোসেন, সিএনজি ও ভ্যান হারানো মোঃ সেলিম মিয়া সকলের ঠিকানা- সাং- ধারাশাই, তুলপাই বাজার, ছয়দেবপুর ইউনিয়ন, থানা- কচুয়া, চাঁদপুর। অত্র এলাকার এমপি সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহিউদ্দিন খান আলমগীরের নিকট ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলো ক্ষণিকের তরে আশ্রয় পেলেও প্রাণ রক্ষার ভয়ে এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছে ঢাকার অলি-গলিতে।

সন্ত্রাসী গ্যাং এর গড ফাদার ইউপি চেয়ারম্যান সামছুদ্দিন মুন্সীসহ তার বাহিনীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনাল আদালত, চাঁদপুর মামলা নং- ৪৪৮/২০১৫, এসিড নিক্ষেপ ও সমস্ত মুখমন্ডল এবং বুক ঝলসানোর জন্য কচুয়া থানায় মামলা নং- ০১, তাং- ০৩/১০/২০১৫ ইং, দোকান লুট ও পোড়ানোর জন্য বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত, চাঁদপুরে অভিযোগের প্রেক্ষিতে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কচুয়া থানায় নির্দেশসহ অসংখ্য মানুষের অভিযোগ থানা পুলিশের কাছে থাকার পরেও অত্যাচারী এই চেয়ারম্যান ও তার পালিত গংদের নির্যাতনের কোন প্রতিকার পায় না স্থানীয় জনগণ।

কে এই চেয়ারম্যান সামছুদ্দিন মুন্সী। তার আশ্রয়-প্রশ্রয় দাতাই বা কারা ?

দেশে এখন শুধু জয় বাংলা, জয় বঙ্গন্ধু জিকির মুখে জারি রেখে জনগণকে হিটলারের মত নৃশংস নির্যাতন করলে, দূর্নীতি, মাদক ব্যবসা যা ইচ্ছে এ রকম সমাজ বিরোধী যে কোন কাজ করলেই মুক্ত ? আইনের আওতায় এই সন্ত্রাসী চেয়ারম্যান সামছুদ্দিন গংদের যথাযথ বিচার নিশ্চিত করা দরকার। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলো নিজ গ্রামে ফিরে গিয়ে সাধারণ মানুষের মত কাজকর্ম করে বাঁচার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। 
Share To:

Tangail Darpan

Post A Comment: