ডোর-টু-ডোর ট্রাফিক অ্যাওয়ারনেস প্রোগ্রাম - Tangail Darpan | Online Bangla Newspaper 24/7 | টাঙ্গাইল দর্পণ-অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল ২৪/৭ ডোর-টু-ডোর ট্রাফিক অ্যাওয়ারনেস প্রোগ্রাম - Tangail Darpan | Online Bangla Newspaper 24/7 | টাঙ্গাইল দর্পণ-অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল ২৪/৭

728x90 AdSpace

  • Latest News

    Tuesday, February 07, 2017

    ডোর-টু-ডোর ট্রাফিক অ্যাওয়ারনেস প্রোগ্রাম


    বিশেষ প্রতিবেদক :

    প্রতিদিন ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা। রাস্তা পারাপারে অসচেতনতা, অসতর্কতা ও অদক্ষ চালকের কারণে নিয়মিত প্রাণহানি ঘটছে। এসব বিষয় বিবেচনায় রেখে ডোর-টু-ডোর ট্রাফিক অ্যাওয়ারনেস প্রোগ্রাম পরিচালনা করছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক উত্তর বিভাগ।

    মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বনানীর চেয়ারম্যান বাড়িতে অ্যাপারেল ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেডে রাস্তা পারাপারে গণসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে গার্মেন্ট কর্মীদের ট্রাফিক বিভাগের পক্ষ থেকে কিছু দিক-নির্দেশনা দেওয়া হয়।

    গার্মেন্ট কর্মীদের উদ্দেশে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক (উত্তর) বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) প্রবীর কুমার রায় বলেন, আপনারা রাস্তা পারাপারের জন্য অবশ্যই ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করবেন। রাস্তার যেসব স্থানে ফুটওভার ব্রিজ নেই সেখানে ট্রাফিক পুলিশের সহায়তা নিন। অনেক সময় আমরা দেখতে পাই, রাস্তা পারাপারে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করে সিগন্যাল অমান্য করে পারাপার হচ্ছেন অনেকেই। এতে জীবনের যেমন ঝুঁকি আছে তেমনি ট্রাফিক ম্যানেজ করতেও সমস্যা হয়।

    তিনি বলেন, একটু সময় বাঁচাতে তাড়াহুড়া করে রাস্তা পারাপার থেকে আপনারা বিরত থাকবেন। এতে আপনি নিরাপদ থাকবেন, কোনো যানজটের সৃষ্টিও হবে না।

    ডিসি ট্রাফিক অনুরোধ জানিয়ে বলেন, রাস্তার যেসব স্থানে ফুটওভার ব্রিজ বা আন্ডারপাস আছে সেই স্থানে দয়া করে রাস্তার মধ্যে ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হবেন না। একটু দূরে হলেও কষ্ট করে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করুন।
    পারাপারে গণসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে গার্মেন্ট কর্মীদের ট্রাফিক বিভাগের পক্ষ থেকে কিছু দিক-নির্দেশনা দেওয়া হয়- ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
    গার্মেন্ট কর্মীদের কিছু ছবি ও ভিডিও দেখিয়ে প্রবীর কুমার রায় বলেন, এলোমেলো হয়ে কখনও রাস্তা পারাপার করবেন না। আমরা অনাকাঙ্ক্ষিত কোনো দুর্ঘটনা প্রত্যাশা করি না। যখন রাস্তা পারাপার হবেন তখন অবশ্যই ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করবেন। ট্রাফিক আইন মেনে চলুন। পারাপারে কোনো সমস্যা হলে অবশ্যই ট্রাফিক পুলিশকে অবিহিত করুন।

    প্রবীর কুমার বলেন, মহাখালীতে একজন এসএসসি পরীক্ষার্থী সড়ক দুর্ঘটনায় মারে গেছে। এর কিছুদিন আগে হোটেল লা মেরিডিয়ানের সামনে সড়ক দুর্ঘটনায় এক কলেজ ছাত্র নিহত হয়েছেন। এটা খুব মর্মান্তিক ঘটনা। অনেকে রাস্তায় চলাচলের সময় কানে হেডফোন ব্যবহার করেন। এটা করা যাবে না। এতে গাড়ির হর্ন শোনা যায় না।

    অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা যখন বাসা থেকে বের হবেন তখন হেডফোন খুলে পকেটে রাখুন।

    এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ট্রফিক উত্তর) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) মো. নাজমুল হাসান, সিনিয়র সহকারী কমিশনার (এসি এডমিন) ইয়াসমিন সাইকা পাশা, ট্রাফিক এসি (মহাখালি) খোরশেদ আলম, ট্রাফিক এসি (বাড্ডা) ফেরদৌসী রহমান, অ্যাপারেল ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আশরাফ আলী খান প্রমুখ।





    • Blogger Comments
    • Facebook Comments
    Item Reviewed: ডোর-টু-ডোর ট্রাফিক অ্যাওয়ারনেস প্রোগ্রাম Rating: 5 Reviewed By: Tangaildarpan News
    Scroll to Top