“মোবাইল ব্যাংকিং এর সার্ভিস চার্জ কমানো, নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও আলাদা মোবাইল ব্যাংকিং কমিশন গঠন” এর দাবিতে মানববন্ধন - Tangail Darpan | Online Bangla Newspaper 24/7 | টাঙ্গাইল দর্পণ-অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল ২৪/৭ “মোবাইল ব্যাংকিং এর সার্ভিস চার্জ কমানো, নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও আলাদা মোবাইল ব্যাংকিং কমিশন গঠন” এর দাবিতে মানববন্ধন - Tangail Darpan | Online Bangla Newspaper 24/7 | টাঙ্গাইল দর্পণ-অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল ২৪/৭

728x90 AdSpace

  • Latest News

    Saturday, October 01, 2016

    “মোবাইল ব্যাংকিং এর সার্ভিস চার্জ কমানো, নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও আলাদা মোবাইল ব্যাংকিং কমিশন গঠন” এর দাবিতে মানববন্ধন

    নিজস্ব প্রতিনিধি : আজ ০১ অক্টোবর ২০১৬ সকাল ১১ টায় ঢাকাস্থ জাতীয় প্রেসক্লাব সম্মুখে “মোবাইল ব্যাংকিং এর সার্ভিস চার্জ কমানো, নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও আলাদা মোবাইল ব্যাংকিং কমিশন গঠন” এর দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।এতে বক্তরা বলেন, বাংলাদেশে প্রথম মোবাইল ব্যাংকিং চালু হয় ২০১১ সালে। শুরুতে মানুষ এ সেবা বুঝে হোক আর না বুঝে হোক তা লুফে নেয়। যে উদ্দেশ্যে এই মোবাইল ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু করা হয় তা হলো প্রান্তিক জনগোষ্ঠিকে মোবাইল ব্যাংকিং এর আওতায় আনা। বর্তমানে মোট জনসংখ্যার প্রায় ৮৫% লোক ব্যাংকিং সেবা থেকে বঞ্চিত। আর এসকল জনগোষ্ঠিকে ব্যাংকিং সেবা প্রদানের উদ্দেশ্যেই মোবাইল ব্যাংকিং এর যাত্রা শুরু হয়। সেই মোবাইল ব্যাংকিং বাংলাদেশে এতো বিকাশ লাভ করেছে যে তা রকেট আকারে মিসাইল ক্ষেপণাস্ত্র হয়ে প্রান্তিক অর্থনীতিতে আঘাত হানছে।
    সভাপতির বক্তব্যে মহিউদ্দীন আহমেদ বলেন, দৈনিক লেনদেন হচ্ছে প্রায় ৬ শত ৫ কোটি টাকা। আর এ থেকে কমিশন বাবদ কোম্পানীর নির্ধারিত রেট অনুযায়ী দৈনিক কমিশন আসে ১১ কোটি ৯২ লক্ষ ৫০ হাজার। যা মাসে দাড়ায় ৩ শত ৫৭ কোটি ৫ লক্ষ টাকা, বাৎসরিক দাড়ায় ৪ হাজার ২ শত ৯৩ কোটি টাকা। আর রিটেইলারগণ এরপরে অতিরিক্ত আদায় করে থাকে ১২০ কোটি টাকা যা এক প্রকার প্রকাশ্যে ডাকাতি ছাড়া আর কিছুই নয়। আবার সেন্ট মানি বাবদও কাটা হচ্ছে কোটি কোটি টাকা। যদি এ লেনদেন শুধু সেন্ট মানির মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতো তাহলে গ্রাহক এ থেকে উপকৃত হতো। কোম্পানীগুলো জনস্বার্থে কোন কাজ না করে জনগণের পকেট থেকে তাদের নিজেদের প্রচারণার জন্য বিশাল বিশাল বিজ্ঞাপন প্রচারে ব্যস্ত থাকে। যার ফলে প্রান্তিক অর্থনীতি আজ হুমকির সম্মুখীন। গত ৫ বছরে যে অতিরিক্ত সার্ভিস আদায় হয়েছে তা দিয়ে একটি পদ্মা সেতু নির্মাণ করা যেতো।
    তারা বলেন, বিকাশ এর মাধ্যমে যেহেতু লেনদেন বেশি হয় তাই আমরা এর কমিশনের দিকে যদি তাকাই তাহলে দেখা যাবে যে, কোম্পানী কমিশন কেটে নেয় ১.৮৫% আবার বেশির ভাগ রিটেইলার নেয় ২% করে। দেখা যায় যে, যদি একজন গ্রাহক মোবাইল টু মোবাইল ক্যাশ আউট করে তাহলে তার কাছে থেকে ১০,০০০/- টাকার লেনদেনের জন্য কমিশন গুনতে হয় ২০০/- টাকা। আর ৫০,০০০/- টাকার লেনদেন করলে ব্যয় করতে হয় প্রায় ১০০০/- এক হাজার টাকা। এ বিশাল ব্যয় করে প্রান্তিক জনগোষ্ঠি প্রকৃত পক্ষে কতটুকো লাভবান হচ্ছে তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। যেখানে ব্যাংক এর মাধ্যমে লেনদেন করলে সিটির মধ্যে কোন সার্ভিস চার্জ লাগে না বা সিটির বাইরে ব্যয় করলে ৫০ হাজার টাকা স্থানান্তর করলে কমিশন লাগে ২৩ টাকা যেখানে মোবাইল ব্যাংকিং করলে ব্যয় হয় ১০০০ টাকা। মোবাইল ব্যাংকিং এর সেবা সাধারণত একটি ম্যাসেজের মাধ্যমে স্থানান্তরিত হয়, যেই ম্যাসেজের খরচ পড়ে মাত্র ২৫ পয়সা। সেখানে কি উদ্দেশ্যে, কাদের স্বার্থে এ বিশাল সার্ভিস চার্জ নেওয়া হচ্ছে তা আমাদের কাছে মোটেও বোধগম্য নয়। সরকার যদি সত্যিকার অর্থে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে এ সেবা দেওয়ার উদ্দেশ্যে এ মোবাইল ব্যাংকিং চালু করে থাকে তাহলে অবশ্যই এর সার্ভিস চার্জ প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সাধ্যের মধ্যে আনতে হবে। নতুবা এর মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতি প্রান্তিক পর্যায়ের অর্থনীতি ধ্বংসের সম্মুখীন হয়ে পড়বে।
    বক্তারা অবিলম্বে মোবাইল ব্যাংকিং এর সার্ভিস চার্জ কমানো, নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও আলাদা মোবাইল ব্যাংকিং কমিশন গঠন করে এখাতকে জনবান্ধব ও সেবামূলক খাতে পরিণত করার জোর দাবি জানান। যত্রতত্রভাবে এজেন্ট নিয়োগ করার ফলে এর নিরাপত্তা ব্যবস্থা হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে এবং গ্রাহকরা প্রতিনিয়তই এসকল এজেন্টের মাধ্যমে প্রতারিত হচ্ছে। তাই মোবাইল ব্যাংকিং সেবার জন্য একটি আলাদা কমিশন গঠন করে এ খাতকে জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে।
    মাববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মহিউদ্দীন আহমেদ।
    মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা রাজেকুজ্জামান রতন, জাগো বাঙালীর সভাপতি ড. মেজর (অবঃ) হাবিবুর রহমান, বাংলাদেশ সুপ্রীমকোর্ট’র এ্যাড. বেহেশতি মারজান, এ্যাড. ইসরাত হাসান, দুর্নীতি প্রতিরোধ আন্দোলন’র সভাপতি হারুন অর রশীদ খান, মিজানুর রহমান মিজু, হাবিবুর রহমান, মানবাধিকার পার্টির চেয়ারম্যান লায়ন ডা. আফরোজা আক্তার হ্যাপি, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ন্যাপ ভাসানীর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ ইব্রাহিম, বাবুল সরদার চাখারী, সৈয়দ আক্কাস প্রমুখ।


    • Blogger Comments
    • Facebook Comments
    Item Reviewed: “মোবাইল ব্যাংকিং এর সার্ভিস চার্জ কমানো, নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও আলাদা মোবাইল ব্যাংকিং কমিশন গঠন” এর দাবিতে মানববন্ধন Rating: 5 Reviewed By: Tangaildarpan News
    Scroll to Top