কাজের অনুমোদন পাচ্ছে কুশিয়ারা পাওয়ার - Tangail Darpan | Online Bangla Newspaper 24/7 | টাঙ্গাইল দর্পণ-অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল ২৪/৭ কাজের অনুমোদন পাচ্ছে কুশিয়ারা পাওয়ার - Tangail Darpan | Online Bangla Newspaper 24/7 | টাঙ্গাইল দর্পণ-অনলাইন বাংলা নিউজ পোর্টাল ২৪/৭
  • শিরোনাম

    মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৫

    কাজের অনুমোদন পাচ্ছে কুশিয়ারা পাওয়ার

    অর্থনীতি ডেক্স : সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে ১৬৩ মেগাওয়াট গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে বৈদেশিক বিনিয়োগের শর্ত শিথিল করা হচ্ছে। প্রকল্পের দরপত্র অনুমোদনের পর প্রায় তিন বছর হতে চললেও বৈদেশিক অর্থায়ন যোগাড় করতে পারেনি প্রকল্প বাস্তবায়নকারী স্পন্সর প্রতিষ্ঠান ‘কুশিয়ারা পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড’।

    এ অবস্থায় অন্তর্বর্তীকালীন ব্যবস্থা হিসেবে স্থানীয় ব্যাংকঋণের মাধ্যমে প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শুরু করা এবং বাণিজ্যিকভাবে প্রকল্প চালুর তারিখ ঘোষণার দুই বছরের মধ্যে বৈদেশিক অর্থায়ন যোগাড় করা হবে বলে স্পন্সর কোম্পানি প্রস্তাব দিয়েছে। প্রস্তাবটিতে এরই মধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগ প্রাথমিক অনুমোদন দিয়েছে। চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য বুধবার অনুষ্ঠেয় সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এটি উপস্থাপন করা হবে।

    বিদ্যুৎ বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

    বিদ্যুৎ বিভাগ সূত্র জানায়, সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে ২০১২ সালের ২৯ জানুয়ারি বিদ্যুৎকেন্দ্রটি স্থাপনের অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে শর্ত ছিল যে, ৭০ শতাংশ বৈদেশিক বিনিয়োগ ও ৩০ শতাংশ স্থানীয় অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নকারী স্পন্সর কোম্পানিই বৈদেশিক অর্থায়ন যোগাড় করবে। ক্রয় কমিটির অনুমোদনের পর ২০১৩ সালের ২০ মার্চ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সঙ্গে ‘পাওয়ার পার্চেজ এগ্রিমেন্ট’ (পিপিএ) এবং সরকারের ‘ইমপ্লিমেন্টেশন এগ্রিমেন্ট’ (আইএ) স্বাক্ষর করে কুশিয়ারা পাওয়ার কোম্পানি।

    সূত্র জানায়, পিপিএ ও আইএ স্বাক্ষরিত হওয়ার পর ‘লিক্যুইডেটেড ড্যামেজ’ আরোপ নিয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকার গ্যাস বিতরণ কোম্পানি জালালাবাদ গ্যাস কোম্পানির সঙ্গে কুশিয়ারার মতোবিরোধের কারণে দীর্ঘদিন ‘গ্যাস সরবরাহ চুক্তি’ (জিএসএ) স্বাক্ষরিত হয়নি। চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি বিদ্যুৎ বিভাগে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে বিষয়টি উত্থাপন করা হলে গত ২০ আগস্ট জালালাবাদ গ্যাস কোম্পানির সঙ্গে কুশিয়ারার ‘গ্যাস সরবরাহ চুক্তি’ (জিএসএ) স্বাক্ষরিত হয়।

    বিদ্যুৎ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গ্যাস সরবরাহ নিয়ে জালালাবাদ গ্যাস কোম্পানির সঙ্গে মতোবিরোধের অবসানের পর পরই ১১ ফেব্রুয়ারি প্রকল্প বাস্তবায়নে ৭০ শতাংশ বৈদেশিক বিনিয়োগের শর্ত প্রত্যাহারের জন্য বিদ্যুৎ বিভাগে আবেদন জানায় কুশিয়ারা পাওয়ার।

    পরবর্তীতে ১৩ এপ্রিল পৃথক আরেকটি চিঠিতে কুশিয়ারা বিদ্যুৎ বিভাগকে জানায়, প্রকল্পে অর্থায়নের জন্য সম্ভাব্য বৈদেশিক ঋণদাতার সঙ্গে তারা যোগাযোগ করছে এবং প্রকল্প কার্যকরের তারিখ শুরু হওয়ার পর তারা বৈদেশিক ঋণদাতাদের সঙ্গে আলোচনা শুরু করবে, যা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। এমতাবস্থায় দ্রুত প্রকল্প বাস্তবায়নে অন্তর্বর্তীকালীন ব্যবস্থা হিসেবে স্থানীয় ব্যাংকঋণের মাধ্যমে প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শুরু করা এবং বাণিজ্যিকভাবে প্রকল্প চালুর তারিখ ঘোষণার দুই বছরের মধ্যে বৈদেশিক অর্থায়ন যোগাড় করা হবে বলে কুশিয়ারার পক্ষ থেকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

    সূত্র জানায়, কুশিয়ারার এ প্রস্তাব বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড এবং পরে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী অনুমোদন দিয়েছেন। সম্প্রতি এটি সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে পাঠানো হয়েছে।

    এদিকে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব মনোয়ার ইসলাম স্বাক্ষরিত প্রস্তাবের সার-সংক্ষেপে কুশিয়ারার প্রস্তাব অনুমোদনের সুপারিশ করা হলেও দরপত্র অনুমোদনের পর বৈদেশিক অর্থায়ন সংগ্রহে স্পন্সর কোম্পানির কালক্ষেপণের কোনো ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি।

    টেকনাফে নির্মিত হচ্ছে ২০ মেগাওয়াট সোলার পার্ক

    এদিকে বুধবার সচিবালয়ে অনুষ্ঠেয় সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠকে কক্সবাজারের টেকনাফে হীলা মৌজায় আইপিপি হিসেবে ২০ মেগাওয়াট একটি সোলার পার্ক স্থাপনের অনুমোদন দেওয়া হবে। ‘নো ইলেকট্রিসিটি, নো পেমেন্ট’ ভিত্তিতে ২৫ বছর মেয়াদী এ সোলার পার্কটি যৌথভাবে স্থাপন করবে ‘জুলস পাওয়ার লিমিটেড’ এবং ‘সামেক কমপ্লিট ইক্যুইপমেন্ট এ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড’। এ বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে উৎপাদিত প্রতি কিলোওয়াট/ঘণ্টা বিদ্যুতের ট্যারিফ হচ্ছে ১০ টাকা ৯৩ পয়সা।
    • Blogger Comments
    • Facebook Comments
    Item Reviewed: কাজের অনুমোদন পাচ্ছে কুশিয়ারা পাওয়ার Rating: 5 Reviewed By: Tangaildarpan News
    Scroll to Top